ঢাকা ১২:৪৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চাটমোহরে মাদ্রাসাছাত্রী ও যুবকের আত্মহত্যা

বড়াল প্রতিবেদক:
  • আপডেট সময় : ০৪:১১:৪৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১০২ বার পঠিত

পাবনার চাটমোহরে এক মাদ্রাসাছাত্রী ও অপর এক যুবক কীটনাশক বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। পুলিশ তাদের মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা মর্গে পাঠিয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় পৃথক দু’টি ইউডি মামলা হয়েছে।
জানা গেছে,পিতা-মাতার উপর অভিমান করে লামিয়া খাতুন (১৫) নামের এক মাদ্রাসাছাত্রী কিটনাশন বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। লামিয়া উপজেলার বিলচলন ইউনিয়নের রামনগর পশ্চিমপাড়া গ্রামের আবু বকর সিদ্দিকীর মেয়ে এবং স্থানীয় এক মাদ্রাসার নবম শ্রেণীর ছাত্রী ছিল। সোমবার(১২ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত ৮ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পিতা-মাতা পড়ালেখা নিয়ে বকা দিলে তাদের উপর অভিমানে সবার অগোচরে ঘরে রাখা কীটনাশক পান করে লামিয়া। পরে পরিবারের লোকজন বুঝতে পেরে প্রথমে তাকে চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে সেখানে তার অবস্থার অবনতি হয়। পরে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানও অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।
এদিকে, একই ইউনিয়নের দোলং গ্রামের মোক্তার হোসেন( ২৫) নামে এক যুবক গ্যাস ট্যাবলেট (কীটনাশক) খেয়ে আত্মহত্যা করেছে। মোক্তার হোসেন ওই এলাকার মফিজ উদ্দিনের ছেলে। সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত ১২ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
জানা গেছে,পারিবারিক কারণে মুক্তার ঘরে থাকা গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে উদ্ধার করে চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে আসলে তার অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।
চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম রেজা জানান, এ ব্যাপারে চাটমোহর থানায় পৃথক দুটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ট্যাগস :

চাটমোহরে মাদ্রাসাছাত্রী ও যুবকের আত্মহত্যা

আপডেট সময় : ০৪:১১:৪৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পাবনার চাটমোহরে এক মাদ্রাসাছাত্রী ও অপর এক যুবক কীটনাশক বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। পুলিশ তাদের মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা মর্গে পাঠিয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় পৃথক দু’টি ইউডি মামলা হয়েছে।
জানা গেছে,পিতা-মাতার উপর অভিমান করে লামিয়া খাতুন (১৫) নামের এক মাদ্রাসাছাত্রী কিটনাশন বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। লামিয়া উপজেলার বিলচলন ইউনিয়নের রামনগর পশ্চিমপাড়া গ্রামের আবু বকর সিদ্দিকীর মেয়ে এবং স্থানীয় এক মাদ্রাসার নবম শ্রেণীর ছাত্রী ছিল। সোমবার(১২ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত ৮ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পিতা-মাতা পড়ালেখা নিয়ে বকা দিলে তাদের উপর অভিমানে সবার অগোচরে ঘরে রাখা কীটনাশক পান করে লামিয়া। পরে পরিবারের লোকজন বুঝতে পেরে প্রথমে তাকে চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে সেখানে তার অবস্থার অবনতি হয়। পরে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানও অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।
এদিকে, একই ইউনিয়নের দোলং গ্রামের মোক্তার হোসেন( ২৫) নামে এক যুবক গ্যাস ট্যাবলেট (কীটনাশক) খেয়ে আত্মহত্যা করেছে। মোক্তার হোসেন ওই এলাকার মফিজ উদ্দিনের ছেলে। সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত ১২ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
জানা গেছে,পারিবারিক কারণে মুক্তার ঘরে থাকা গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে উদ্ধার করে চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে আসলে তার অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।
চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম রেজা জানান, এ ব্যাপারে চাটমোহর থানায় পৃথক দুটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা মর্গে পাঠানো হয়েছে।