ঢাকা ০৮:১৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজ :
Logo চাটমোহরে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরোধী আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত Logo চাটমোহরে বিদেশ প্রত্যাগত অভিবাসীদের পুনঃএকত্রীকরনে রেইজ প্রকল্পের ভূমিকা শীর্ষক ওরিয়েন্টেশন Logo চাটমেহরে আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত Logo নারী মাদক পাচারকারী আটক ও ৩৩০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ Logo উত্তাল বঙ্গোপসাগর, বন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত Logo জ্যৈষ্ঠের গরমে তাল শাঁসের ব্যাপক চাহিদা Logo চাটমোহরে শিল্পী সমাজীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত Logo ভারতে অস্ত্র চোরাচালান বন্ধ করেছে আ. লীগ সরকার : প্রধানমন্ত্রী Logo পাবনার ভাঁড়ারা ইউপি চেয়ারম্যান সুলতান গ্রেপ্তার Logo গুরুদাসপুরে জনস্বাস্থ্য উন্নয়নে তামাকের মূল্য ও কর বৃদ্ধির দাবীতে অবস্থান কর্মসূচী

পাবনায় সাংবাদিকের বাড়িতে হামলা, অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার ৪

পাবনা প্রতিনিধি:
  • আপডেট সময় : ১০:০২:৫০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ নভেম্বর ২০২৩ ৯০ বার পঠিত

পাবনায় মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের বিশেষ প্রতিনিধি ও উত্তরাঞ্চলীয় ব্যুরো চিফ উৎপল মির্জার বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এসময় অভিযুক্ত এক নারীসহ চারজনকে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করে পুলিশ। রোববার (১২নভেম্বর) দুপুরে পাবনা পৌর সদরের দিলালপুর মহল্লায় ঘটনাটি ঘটে।গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার আলোকদিয়ার গ্রামের শরিফুল ইসলামের স্ত্রী মুসলিমা খাতুন (৩৫), পাবনা পৌর সদরের আরিফপুর মহল্লার আব্দুর রহমান মোল্লার ছেলে মোবারক মোল্লা (২৫), দিলালপুর মহল্লার জহুরুল ইসলাম (৩৫) ও তানভীর ইসলাম (৩০)।

পুলিশ ও ভুক্তভোগীর পরিবার জানায়, দুপুরের দিকে দুর্বৃত্তরা একটি মাইক্রোবাস ও কয়েকটি মোটরসাইকেলে করে দেশি অস্ত্র নিয়ে সাংবাদিক উৎপল মির্জার বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় তারা সাংবাদিকের নাম ধরে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও বাসার তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশের চেষ্টা করে। ঘটনার সময় সাংবাদিক উৎপল মির্জা বাড়িতে ছিলেন না। পরে স্ত্রীর কাছ থেকে খবর পেয়ে উৎপল মির্জা ঘটনাটি পুলিশ সুপারকে জানান। এরপর সদর থানার ওসির নেতৃত্বে ঘটনাস্থলে পুলিশ আসে এবং এক নারীসহ চারজন গ্রেপ্তার করে। এসময় অন্যরা পালিয়ে যান। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ দেশিয় অস্ত্র জব্দ করে।

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম জানান, হামলার ঘটনায় পুলিশ তাৎক্ষনিক চার জনকে দেশি অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করেছে। তাদের থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এর পেছনে কারা ছিল, কি কারণে এই হামলার ঘটনা সব খতিয়ে দেখা হচ্ছে। প্রয়োজনীয় আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

ভুক্তভোগী সাংবাদিক উৎপল মির্জা বলেন, দুপুরে আমি মাছারাঙা টেলিভিশনের পাবনা অফিসে কর্মরত ছিলাম। এ সময় আমার স্ত্রী হামলার ঘটনাটি জানায়। আমি পুলিশ সুপারকে জানালে তিনি সদর থানার ওসিকে ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে পাঠান। এসময় হামলাকারীদের অনেকেই পালিয়ে গেলেও চারজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

তিনি আরও বলেন, হামলাকারীরা বহিরাগত। তাদের আগে কখনো এ এলাকায় দেখা যায়নি। তাদের ভাড়া করে নিয়ে আসা হয়েছে বলে মনে হয়। কেন, কি কারণে এই হামলা তা এখনও নিশ্চিত হতে পারেননি তিনি। তবে ইছামতি নদী নিয়ে একটি অনুসন্ধানী রিপোর্ট করার কারণে সংক্ষুব্ধ কেউ হামলার সঙ্গে জড়িত থাকতে পারেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন তিনি।

এদিকে, সাংবাদিক উৎপল মির্জার বাড়িতে সশস্ত্র হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন পাবনায় কর্মরত সাংবাদিকরা। পাবনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এবিএম ফজলুর রহমান বলেন, সাংবাদিক উৎপল মির্জার বাড়িতে প্রকাশ্যে সশস্ত্র হামলার ঘটনাটি ন্যাক্কারজনক। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। যারা এই হামলার পেছনে জড়িত তাদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানাই। পাশাপাশি পরিবারটির নিরাপত্তায় পুলিশ মোতায়েনের দাবি জানাচ্ছি।

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রওশন আলী বলেন, সাংবাদিক উৎপল মির্জা বাদী হয়ে চারজনের নাম উল্লেখসহ নাম না জানা কয়েকজনকে আসামি করে সন্ধ্যায় মামলা করেছেন। গ্রেপ্তারকৃতদের সোমবার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হবে।

ট্যাগস :

পাবনায় সাংবাদিকের বাড়িতে হামলা, অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার ৪

আপডেট সময় : ১০:০২:৫০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ নভেম্বর ২০২৩

পাবনায় মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের বিশেষ প্রতিনিধি ও উত্তরাঞ্চলীয় ব্যুরো চিফ উৎপল মির্জার বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এসময় অভিযুক্ত এক নারীসহ চারজনকে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করে পুলিশ। রোববার (১২নভেম্বর) দুপুরে পাবনা পৌর সদরের দিলালপুর মহল্লায় ঘটনাটি ঘটে।গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার আলোকদিয়ার গ্রামের শরিফুল ইসলামের স্ত্রী মুসলিমা খাতুন (৩৫), পাবনা পৌর সদরের আরিফপুর মহল্লার আব্দুর রহমান মোল্লার ছেলে মোবারক মোল্লা (২৫), দিলালপুর মহল্লার জহুরুল ইসলাম (৩৫) ও তানভীর ইসলাম (৩০)।

পুলিশ ও ভুক্তভোগীর পরিবার জানায়, দুপুরের দিকে দুর্বৃত্তরা একটি মাইক্রোবাস ও কয়েকটি মোটরসাইকেলে করে দেশি অস্ত্র নিয়ে সাংবাদিক উৎপল মির্জার বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় তারা সাংবাদিকের নাম ধরে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও বাসার তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশের চেষ্টা করে। ঘটনার সময় সাংবাদিক উৎপল মির্জা বাড়িতে ছিলেন না। পরে স্ত্রীর কাছ থেকে খবর পেয়ে উৎপল মির্জা ঘটনাটি পুলিশ সুপারকে জানান। এরপর সদর থানার ওসির নেতৃত্বে ঘটনাস্থলে পুলিশ আসে এবং এক নারীসহ চারজন গ্রেপ্তার করে। এসময় অন্যরা পালিয়ে যান। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ দেশিয় অস্ত্র জব্দ করে।

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম জানান, হামলার ঘটনায় পুলিশ তাৎক্ষনিক চার জনকে দেশি অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করেছে। তাদের থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এর পেছনে কারা ছিল, কি কারণে এই হামলার ঘটনা সব খতিয়ে দেখা হচ্ছে। প্রয়োজনীয় আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

ভুক্তভোগী সাংবাদিক উৎপল মির্জা বলেন, দুপুরে আমি মাছারাঙা টেলিভিশনের পাবনা অফিসে কর্মরত ছিলাম। এ সময় আমার স্ত্রী হামলার ঘটনাটি জানায়। আমি পুলিশ সুপারকে জানালে তিনি সদর থানার ওসিকে ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে পাঠান। এসময় হামলাকারীদের অনেকেই পালিয়ে গেলেও চারজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

তিনি আরও বলেন, হামলাকারীরা বহিরাগত। তাদের আগে কখনো এ এলাকায় দেখা যায়নি। তাদের ভাড়া করে নিয়ে আসা হয়েছে বলে মনে হয়। কেন, কি কারণে এই হামলা তা এখনও নিশ্চিত হতে পারেননি তিনি। তবে ইছামতি নদী নিয়ে একটি অনুসন্ধানী রিপোর্ট করার কারণে সংক্ষুব্ধ কেউ হামলার সঙ্গে জড়িত থাকতে পারেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন তিনি।

এদিকে, সাংবাদিক উৎপল মির্জার বাড়িতে সশস্ত্র হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন পাবনায় কর্মরত সাংবাদিকরা। পাবনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এবিএম ফজলুর রহমান বলেন, সাংবাদিক উৎপল মির্জার বাড়িতে প্রকাশ্যে সশস্ত্র হামলার ঘটনাটি ন্যাক্কারজনক। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। যারা এই হামলার পেছনে জড়িত তাদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানাই। পাশাপাশি পরিবারটির নিরাপত্তায় পুলিশ মোতায়েনের দাবি জানাচ্ছি।

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রওশন আলী বলেন, সাংবাদিক উৎপল মির্জা বাদী হয়ে চারজনের নাম উল্লেখসহ নাম না জানা কয়েকজনকে আসামি করে সন্ধ্যায় মামলা করেছেন। গ্রেপ্তারকৃতদের সোমবার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হবে।