ঢাকা ০৫:৪৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাবনা-৩ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থীর অফিস ভাঙচুর,সমর্থককে মারধরের অভিযোগ

পাবনা প্রতিনিধি:
  • আপডেট সময় : ০৩:৫৮:৩৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জানুয়ারী ২০২৪ ১৫৫ বার পঠিত

পাবনা-৩ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল হামিদ মাস্টারের ট্রাক প্রতিকের অফিস ভাঙচুর ও এক সমর্থককে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে।
গত সোমবার (১ জানয়ারি) দুপুরে পাবনার ফরিদপুর উপজেলার ধানুয়াঘাটা বাজারে এ ঘটনা ঘটে। মারধরের শিকার হলেন, বালুঘাটা গ্রামের হারান উদ্দিন সরকারের ছেলে মমিনুল হক বিপ্লব।
লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে,ঘটনার দিন বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ধানুয়াঘাটা বাজারে ট্রাক প্রতিকের অফিস খুলে সেখানে ব্যানার লাগাচ্ছিলেন স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থক মমিনুল হক বিপ্লব। এ সময় নৌকার প্রার্থী মকবুল হোসেনের সমর্থক হাদল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সেলিম হোসেনের প্রথমপক্ষের ছেলে সামিউল জান্নাত তুষার ও দ্বিতীয়পক্ষের ছেলে আব্দুল মমিন অন্তত ২০ থেকে ২৫ জন সহযোগী নিয়ে এসে ট্রাক প্রতিকের অফিসের সামনে ব্যানার লাগাতে বাধা দেন।
এ নিয়ে বাক বিতন্ডার এক পর্যায়ে ট্রাক প্রতিকের সমর্থক মমিনুল হক বিপ্লবকে বেদম মারধর করে নৌকার সমর্থক সামিউল জান্নাত তুষার ও আব্দুল মমিন সহ তাদের লোকজন। নিজেকে বাঁচাতে অফিসের ভেতরে ঢুকে গেলে সেখানেও তাকে মারধর করা হয়। এ সময় অফিসের ভেতরে ভাঙচুর চালায় তারা।
এ ঘটনায় ট্রাক প্রতিকের সমর্থক ভুক্তভোগী মমিনুল হক বিপ্লব বাদি হয়ে মঙ্গলবার (২ জানুয়ারি) ফরিদপুর থানায় ১৭ জনকে অভিযুক্ত করে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এ বিষয়ে ফরিদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান বলেন, ‘এটি একটি অধর্তব্য অপরাধ। তদন্তের জন্য বিজ্ঞ আদালতের অনুমতি চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। এছাড়া ঘটনার পরপরই পাবনা-৩ আসনের নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটির প্রধান, চাটমোহর সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার,ফরিদপুর ইউএনও, এসি ল্যান্ড ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন। নিরাপত্তার জন্য ওই এলাকায় পুলিশী নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।’

ট্যাগস :

পাবনা-৩ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থীর অফিস ভাঙচুর,সমর্থককে মারধরের অভিযোগ

আপডেট সময় : ০৩:৫৮:৩৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জানুয়ারী ২০২৪

পাবনা-৩ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল হামিদ মাস্টারের ট্রাক প্রতিকের অফিস ভাঙচুর ও এক সমর্থককে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে।
গত সোমবার (১ জানয়ারি) দুপুরে পাবনার ফরিদপুর উপজেলার ধানুয়াঘাটা বাজারে এ ঘটনা ঘটে। মারধরের শিকার হলেন, বালুঘাটা গ্রামের হারান উদ্দিন সরকারের ছেলে মমিনুল হক বিপ্লব।
লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে,ঘটনার দিন বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ধানুয়াঘাটা বাজারে ট্রাক প্রতিকের অফিস খুলে সেখানে ব্যানার লাগাচ্ছিলেন স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থক মমিনুল হক বিপ্লব। এ সময় নৌকার প্রার্থী মকবুল হোসেনের সমর্থক হাদল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সেলিম হোসেনের প্রথমপক্ষের ছেলে সামিউল জান্নাত তুষার ও দ্বিতীয়পক্ষের ছেলে আব্দুল মমিন অন্তত ২০ থেকে ২৫ জন সহযোগী নিয়ে এসে ট্রাক প্রতিকের অফিসের সামনে ব্যানার লাগাতে বাধা দেন।
এ নিয়ে বাক বিতন্ডার এক পর্যায়ে ট্রাক প্রতিকের সমর্থক মমিনুল হক বিপ্লবকে বেদম মারধর করে নৌকার সমর্থক সামিউল জান্নাত তুষার ও আব্দুল মমিন সহ তাদের লোকজন। নিজেকে বাঁচাতে অফিসের ভেতরে ঢুকে গেলে সেখানেও তাকে মারধর করা হয়। এ সময় অফিসের ভেতরে ভাঙচুর চালায় তারা।
এ ঘটনায় ট্রাক প্রতিকের সমর্থক ভুক্তভোগী মমিনুল হক বিপ্লব বাদি হয়ে মঙ্গলবার (২ জানুয়ারি) ফরিদপুর থানায় ১৭ জনকে অভিযুক্ত করে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এ বিষয়ে ফরিদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান বলেন, ‘এটি একটি অধর্তব্য অপরাধ। তদন্তের জন্য বিজ্ঞ আদালতের অনুমতি চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। এছাড়া ঘটনার পরপরই পাবনা-৩ আসনের নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটির প্রধান, চাটমোহর সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার,ফরিদপুর ইউএনও, এসি ল্যান্ড ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন। নিরাপত্তার জন্য ওই এলাকায় পুলিশী নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।’