ঢাকা ০৭:৪৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফলোআপ :চাটমোহরে নিহত মা ও ছেলের ময়নাতদন্ত শেষে দাফন

বড়াল প্রতিবেদক:
  • আপডেট সময় : ০৪:৫৭:৩১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৪ ২১৫ বার পঠিত

পাবনার চাটমোহরে দুর্বুত্তদের হাতে নৃশংসভাবে নিহত মা ও ছেলের ময়নাতদন্ত শনিবার (২৭ জানুয়ারি) সম্পন্ন হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে দু’জনের মরদেহ গ্রামের কবরস্থানে দাফন করা হয়। এসময় গোটা এলাকায় শোকাবহ পরিবেশের সৃষ্টি হয়।
এদিকে এ হত্যাকান্ডের বিষয়ে নিহত গৃহবধূ লাবনী খাতুনের ভাই ভাঙ্গুড়া উপজেলার হাটগ্রামের বাসিন্দা শাহাদত হোসেন শুক্রবার দিবাগত রাতে বাদী হয়ে চাটমোহর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং ২২। পুলিশ এখনও হত্যাকান্ডের কারণ উদঘাটন করতে পারেনি। তবে তারা অধিকতর গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত চালাচ্ছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাবনা ডিবি পুলিশ দু’জনকে আটক করেছে বলে একটি অসমর্থিত সূত্র জানিয়েছে।
গত বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) রাতের কোন এক সময়ে চাটমোহর উপজেলার ফৈলজানা ইউনিয়নের দিঘুলিয়া গ্রামে মালয়েশিয়া প্রবাসী আঃ রশিদের স্ত্রী লাবনী খাতুন (৩৫) ও তার ছেলে রিয়াদ মাহমুদ (৮) কে শ^াসরোধ করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার বেলা ১২ টার দিকে গৃহবধু লাবনীকে হাত পা বাঁধা অবস্থায় বাড়ির ছাগলের ঘর থেকে ও ছেলে রিয়াদকে বাড়ির পাশের পুকুর পাড়ের একটি মেহগনি গাছ বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ।
পুলিশ হত্যার কারণ অনুসন্ধানে মাঠে নেমেছে। ধারনা করা হচ্ছে অর্থ-সম্পদ লুটপাট করতেই দুর্বৃত্তরা মা ও ছেলেকে হত্যা করেছে। চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম রেজা বলেন,মরদেহ উদ্ধার করার পর শনিবার (২৭ জানুয়ারি) সকালে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানোয়। এ বিষয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। কারা,কেন কিভাবে মারছে-এটা অনুসন্ধানে পুলিশ মাঠে নেমেছে। ইতোমধ্যে কিছু ক্লু আমরা পাচ্ছি। আমরা একেবারে নিবিড়ভাবে তদন্ত করছি। আশা করি শীঘ্রই এই হত্যাকান্ডের ক্লু উদ্ধার করতে পারবো। আটকের বিষয়টি তিনি নিশ্চিত করেননি। কেউ আটক বা গ্রেফতার হয়নি বলে জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

ট্যাগস :

ফলোআপ :চাটমোহরে নিহত মা ও ছেলের ময়নাতদন্ত শেষে দাফন

আপডেট সময় : ০৪:৫৭:৩১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৪

পাবনার চাটমোহরে দুর্বুত্তদের হাতে নৃশংসভাবে নিহত মা ও ছেলের ময়নাতদন্ত শনিবার (২৭ জানুয়ারি) সম্পন্ন হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে দু’জনের মরদেহ গ্রামের কবরস্থানে দাফন করা হয়। এসময় গোটা এলাকায় শোকাবহ পরিবেশের সৃষ্টি হয়।
এদিকে এ হত্যাকান্ডের বিষয়ে নিহত গৃহবধূ লাবনী খাতুনের ভাই ভাঙ্গুড়া উপজেলার হাটগ্রামের বাসিন্দা শাহাদত হোসেন শুক্রবার দিবাগত রাতে বাদী হয়ে চাটমোহর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং ২২। পুলিশ এখনও হত্যাকান্ডের কারণ উদঘাটন করতে পারেনি। তবে তারা অধিকতর গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত চালাচ্ছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাবনা ডিবি পুলিশ দু’জনকে আটক করেছে বলে একটি অসমর্থিত সূত্র জানিয়েছে।
গত বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) রাতের কোন এক সময়ে চাটমোহর উপজেলার ফৈলজানা ইউনিয়নের দিঘুলিয়া গ্রামে মালয়েশিয়া প্রবাসী আঃ রশিদের স্ত্রী লাবনী খাতুন (৩৫) ও তার ছেলে রিয়াদ মাহমুদ (৮) কে শ^াসরোধ করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার বেলা ১২ টার দিকে গৃহবধু লাবনীকে হাত পা বাঁধা অবস্থায় বাড়ির ছাগলের ঘর থেকে ও ছেলে রিয়াদকে বাড়ির পাশের পুকুর পাড়ের একটি মেহগনি গাছ বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ।
পুলিশ হত্যার কারণ অনুসন্ধানে মাঠে নেমেছে। ধারনা করা হচ্ছে অর্থ-সম্পদ লুটপাট করতেই দুর্বৃত্তরা মা ও ছেলেকে হত্যা করেছে। চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম রেজা বলেন,মরদেহ উদ্ধার করার পর শনিবার (২৭ জানুয়ারি) সকালে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানোয়। এ বিষয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। কারা,কেন কিভাবে মারছে-এটা অনুসন্ধানে পুলিশ মাঠে নেমেছে। ইতোমধ্যে কিছু ক্লু আমরা পাচ্ছি। আমরা একেবারে নিবিড়ভাবে তদন্ত করছি। আশা করি শীঘ্রই এই হত্যাকান্ডের ক্লু উদ্ধার করতে পারবো। আটকের বিষয়টি তিনি নিশ্চিত করেননি। কেউ আটক বা গ্রেফতার হয়নি বলে জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।