ঢাকা ১১:৫৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভাঙ্গুড়ায় আগ্নিকান্ডে নগদ টাকা সহ ২৫লাখ টাকার মালামাল পুড়ে ছাই

ভাঙ্গুড়া(পাবনা)প্রতিনিধি:
  • আপডেট সময় : ০৯:১৪:৪৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৪ ১৫৪ বার পঠিত

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় অগ্নিকান্ডে এক শিক্ষক—দম্পতির বাড়ি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে নগদ লক্ষাধিক টাকা ও আসবাবপত্রসহ প্রায় ২৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতির কথা জানিয়েছে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের।

সোমবার (২৯ এপ্রিল) দুপুরে ভাঙ্গুড়া উপজেলার অষ্টমনিষা ইউনিয়নের ছোট বিশাকোল পূর্ব পাড়া গ্রামে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত দম্পতি হলেন, ভাঙ্গুড়া উপজেলার শরৎনগর সিনিয়র ফাযিল (ডিগ্রি) মাদরাসার ক্রীড়া শিক্ষক আব্দুল হামিদ ও উপজেলার ছোট বিশাকোল উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা সেলিনা বানু।

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে এ আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে। অষ্টমনিষা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সুলতানা জাহান বকুল অগ্নিকান্ডের ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়রা জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শিক্ষক আব্দুল হামিদ ও সেলিনা বানু দম্পতির বাড়িতে হঠাৎ আগুন লাগে। খবর পেয়ে গ্রামের লোকজন ছুটে এসে আগুন নেভানো শুরু করে। কিন্তু ততোক্ষণে পুরো বাড়িতে আগুন ছড়িয়ে যায়।

আগুনে ঐ শিক্ষক দম্পতির বাড়ির পাঁচটি কক্ষের সমস্ত কিছুই পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্থরা জানান।

ঘটনার সময় ওই শিক্ষক দম্পতি তাদের নিজ নিজ কর্মস্থলে ছিলেন। খবর পাওয়ার পর বাড়ি এসেই তারা অসুস্থ হয়ে পড়েন।

ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষক আব্দুল হামিদ বলেন, ঘরে থাকা নগদ টাকা, চাল—ডাল, খাদ্যসামগ্রী ও প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিছুই বের করা সম্ভব হয়নি। তার নগদ টাকাসহ প্রায় ২৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেন।

অষ্টমনিষা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সুলতানা জাহান বকুল বলেন, আগুনের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে খোঁজ—খবর নিয়েছি। এটা অনাকাঙ্খিত ও দুঃখজনক।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাজমুন নাহার বলেন, তাৎক্ষণিক
উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১০ হাজার টাকা অনুদান প্রদান করেছ।

ট্যাগস :

ভাঙ্গুড়ায় আগ্নিকান্ডে নগদ টাকা সহ ২৫লাখ টাকার মালামাল পুড়ে ছাই

আপডেট সময় : ০৯:১৪:৪৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৪

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় অগ্নিকান্ডে এক শিক্ষক—দম্পতির বাড়ি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে নগদ লক্ষাধিক টাকা ও আসবাবপত্রসহ প্রায় ২৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতির কথা জানিয়েছে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের।

সোমবার (২৯ এপ্রিল) দুপুরে ভাঙ্গুড়া উপজেলার অষ্টমনিষা ইউনিয়নের ছোট বিশাকোল পূর্ব পাড়া গ্রামে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত দম্পতি হলেন, ভাঙ্গুড়া উপজেলার শরৎনগর সিনিয়র ফাযিল (ডিগ্রি) মাদরাসার ক্রীড়া শিক্ষক আব্দুল হামিদ ও উপজেলার ছোট বিশাকোল উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা সেলিনা বানু।

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে এ আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে। অষ্টমনিষা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সুলতানা জাহান বকুল অগ্নিকান্ডের ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়রা জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শিক্ষক আব্দুল হামিদ ও সেলিনা বানু দম্পতির বাড়িতে হঠাৎ আগুন লাগে। খবর পেয়ে গ্রামের লোকজন ছুটে এসে আগুন নেভানো শুরু করে। কিন্তু ততোক্ষণে পুরো বাড়িতে আগুন ছড়িয়ে যায়।

আগুনে ঐ শিক্ষক দম্পতির বাড়ির পাঁচটি কক্ষের সমস্ত কিছুই পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্থরা জানান।

ঘটনার সময় ওই শিক্ষক দম্পতি তাদের নিজ নিজ কর্মস্থলে ছিলেন। খবর পাওয়ার পর বাড়ি এসেই তারা অসুস্থ হয়ে পড়েন।

ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষক আব্দুল হামিদ বলেন, ঘরে থাকা নগদ টাকা, চাল—ডাল, খাদ্যসামগ্রী ও প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিছুই বের করা সম্ভব হয়নি। তার নগদ টাকাসহ প্রায় ২৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেন।

অষ্টমনিষা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সুলতানা জাহান বকুল বলেন, আগুনের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে খোঁজ—খবর নিয়েছি। এটা অনাকাঙ্খিত ও দুঃখজনক।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাজমুন নাহার বলেন, তাৎক্ষণিক
উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১০ হাজার টাকা অনুদান প্রদান করেছ।