ঢাকা ১১:৩৩ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রান্নার জন্য বাসায় ডেকে নিয়ে ধর্ষণ, অতঃপর…

পাবনা প্রতিনিধি:
  • আপডেট সময় : ০৮:১৭:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২৩ ১৪০ বার পঠিত

এক তরুণীর দায়ের করা ধর্ষণ মামলায় পাবনায় কামরুজ্জামান নয়ন নামের এক চিকিৎসককে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে আটকের পর তাকে ওইদিন বিকেলে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়। পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রওশন আলী এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
গ্রেপ্তারকৃত ডা. নয়ন পাবনা জেনারেল হাসপাতালের নাক কান গলা রোগ বিশেষজ্ঞ (জুনিয়র কনসালটেন্ট)। তিনি পাবনা সদর উপজেলার ক্যালিকো রাজাপুর গ্রামের মৃত আব্দুল করিমের ছেলে। মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ওই তরুণী পাবনার একটি বেসরকারি ফ্যামিলি হিয়ারিং সেন্টারে চাকরি করেন। ডা. কামরুজ্জামান নয়ন রোগীদের পরীক্ষার জন্য তার কাছে পাঠাতেন। রোগীর আসা-যাওয়ার মাধ্যমে ডা. নয়নের সঙ্গে তরুণীর সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত সেপ্টেম্বরে ডা. কামরুজ্জামান তার স্ত্রী অসুস্থ বলে ওই তরুণীকে রান্নার জন্য বাসায় ডাকেন। তরুণী চিকিৎসকের বাসায় গেলে সেখানে তাকে ধর্ষণ করেন ডা. নয়ন। সেই ধর্ষণের ভিডিও তিনি মোবাইল ফোনে গোপনে ধারণ করে রাখেন। এরপর থেকে বিভিন্ন সময় ওই ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে বাসায় নিয়ে মেয়েটিকে একাধিকবার ধর্ষণ করে।

সর্বশেষ গত ১১ নভেম্বর সন্ধ্যায় তার বাসায় ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন চিকিৎসক কামরুজ্জামান। এই ঘটনায় মামলার সিদ্ধান্ত নেন ওই তরুণী।

পাবনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রওশন আলী বলেন, তরুণী মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) সকালে নিজে বাদী হয়ে পাবনা থানায় মামলা করেছেন এবং তার অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে। দুপুরে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে তরুণীর মেডিকেল পরীক্ষা হয়েছে। তবে রিপোর্ট পাওয়া যায়নি। এ নিয়ে তদন্ত শেষে পরবর্তী আইনগত পদক্ষেপ নেয়া হবে। গ্রেপ্তার ডা. নয়নকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

ট্যাগস :

রান্নার জন্য বাসায় ডেকে নিয়ে ধর্ষণ, অতঃপর…

আপডেট সময় : ০৮:১৭:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২৩

এক তরুণীর দায়ের করা ধর্ষণ মামলায় পাবনায় কামরুজ্জামান নয়ন নামের এক চিকিৎসককে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে আটকের পর তাকে ওইদিন বিকেলে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়। পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রওশন আলী এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
গ্রেপ্তারকৃত ডা. নয়ন পাবনা জেনারেল হাসপাতালের নাক কান গলা রোগ বিশেষজ্ঞ (জুনিয়র কনসালটেন্ট)। তিনি পাবনা সদর উপজেলার ক্যালিকো রাজাপুর গ্রামের মৃত আব্দুল করিমের ছেলে। মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ওই তরুণী পাবনার একটি বেসরকারি ফ্যামিলি হিয়ারিং সেন্টারে চাকরি করেন। ডা. কামরুজ্জামান নয়ন রোগীদের পরীক্ষার জন্য তার কাছে পাঠাতেন। রোগীর আসা-যাওয়ার মাধ্যমে ডা. নয়নের সঙ্গে তরুণীর সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত সেপ্টেম্বরে ডা. কামরুজ্জামান তার স্ত্রী অসুস্থ বলে ওই তরুণীকে রান্নার জন্য বাসায় ডাকেন। তরুণী চিকিৎসকের বাসায় গেলে সেখানে তাকে ধর্ষণ করেন ডা. নয়ন। সেই ধর্ষণের ভিডিও তিনি মোবাইল ফোনে গোপনে ধারণ করে রাখেন। এরপর থেকে বিভিন্ন সময় ওই ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে বাসায় নিয়ে মেয়েটিকে একাধিকবার ধর্ষণ করে।

সর্বশেষ গত ১১ নভেম্বর সন্ধ্যায় তার বাসায় ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন চিকিৎসক কামরুজ্জামান। এই ঘটনায় মামলার সিদ্ধান্ত নেন ওই তরুণী।

পাবনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রওশন আলী বলেন, তরুণী মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) সকালে নিজে বাদী হয়ে পাবনা থানায় মামলা করেছেন এবং তার অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে। দুপুরে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে তরুণীর মেডিকেল পরীক্ষা হয়েছে। তবে রিপোর্ট পাওয়া যায়নি। এ নিয়ে তদন্ত শেষে পরবর্তী আইনগত পদক্ষেপ নেয়া হবে। গ্রেপ্তার ডা. নয়নকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।