ঢাকা ০৭:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সুজানগরে ইউপি চেয়ারম্যানকে আ.লীগ সভাপতির হুমকি!

সুজানগর (পাবনা) প্রতিনিধি:
  • আপডেট সময় : ০৫:২৫:৫২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১০ মার্চ ২০২৪ ৮১ বার পঠিত

আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিপক্ষে কাজ করায় পাবনার সুজানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল ওহাবের বিরুদ্ধে ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ খানকে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার (৮ মার্চ) এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়। এর প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। অভিযুক্ত আব্দুল ওহাব আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে,শুক্রবার সকালে নির্বাচনী প্রাক প্রচারণা চালাতে হাটখালির কামালপুর এলাকায় যান আব্দুল ওহাব ও তার নেতাকর্মীরা। এলাকার স্থানীয়দের মাঝে ভোট প্রার্থনা শেষে স্থানীয় চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ খানের বাড়িতে যান আব্দুল ওহাব। এ সময় চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ খানকে তার পক্ষে ভোট করার জন্য আহ্বান জানান। এতে চেয়ারম্যান রাজি না হলে তাকে হুমকি দেন তিনি।
এ বিষয়ে ভুক্তভোগী ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ খান বলেন,আব্দুল ওহাব ও তার কয়েকশ’ ক্যাডার বাহিনী অতর্কিতভাবে আমার বাড়ির ওপর হামলা চালিয়ে আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছেন। তার পক্ষে ভোট না করায় আমাকে বাড়ির বাইরে বের হলে হত্যা করা হবে বলে হুমকি দিয়েছেন। আমি এ বিষয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ দিয়েছি।
তবে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আব্দুল ওহাব। তিনি বলেন,আমরা ওনার (ফিরোজ আহমেদ খান) কাছে ভোট চাইতে যাই। উনি তখন বললেন,তাদের কাছে নাকি আমার ভোট চাওয়া ঠিক না! উনি যদি বলে তাহলে নাকি ওই এলাকার লোক আমার পক্ষে ভোট করবে না। এসব নিয়ে উনার লোকজনের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়েছে। কিন্তু কোনো হুমকি দেওয়া হয়নি। উনিই হুমকি দিয়ে বলেছেন-আমাকে ওখানে ঢুকতে দেবেন না, তখন আমিও বলেছি তাহলে উনাকেও কোথাও যেতে দেব না।
সুজানগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জালাল উদ্দীন বলেন,এখনো আমি লিখিত অভিযোগ পাইনি। তবে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
এদিকে চেয়ারম্যানকে হুমকি দেওয়ার প্রতিবাদে গত শুক্রবার বিকেলে হাটখালির কামালপুর বাজারে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। এতে উপস্থিত ছিলেন হাটখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ খান,হাটখালী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আজহার আলী শেখ,সুজানগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক সরদার আব্দুর রউফ,সুজানগর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ফেরদৌস আলম ফিরোজ,উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক উপদপ্তর সম্পাদক রেজা মন্ডল,সুজানগর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক আমিরুল ইসলাম, হাটখালী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি নুরুল ইসলাম রিপন, হাটখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল বাতেন পাপ্পু,হাটখালী ইউনিয়ন কৃষকলীগের সভাপতি শুরমান মেম্বার, যুবলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।

ট্যাগস :

সুজানগরে ইউপি চেয়ারম্যানকে আ.লীগ সভাপতির হুমকি!

আপডেট সময় : ০৫:২৫:৫২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১০ মার্চ ২০২৪

আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিপক্ষে কাজ করায় পাবনার সুজানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল ওহাবের বিরুদ্ধে ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ খানকে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার (৮ মার্চ) এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়। এর প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। অভিযুক্ত আব্দুল ওহাব আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে,শুক্রবার সকালে নির্বাচনী প্রাক প্রচারণা চালাতে হাটখালির কামালপুর এলাকায় যান আব্দুল ওহাব ও তার নেতাকর্মীরা। এলাকার স্থানীয়দের মাঝে ভোট প্রার্থনা শেষে স্থানীয় চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ খানের বাড়িতে যান আব্দুল ওহাব। এ সময় চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ খানকে তার পক্ষে ভোট করার জন্য আহ্বান জানান। এতে চেয়ারম্যান রাজি না হলে তাকে হুমকি দেন তিনি।
এ বিষয়ে ভুক্তভোগী ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ খান বলেন,আব্দুল ওহাব ও তার কয়েকশ’ ক্যাডার বাহিনী অতর্কিতভাবে আমার বাড়ির ওপর হামলা চালিয়ে আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছেন। তার পক্ষে ভোট না করায় আমাকে বাড়ির বাইরে বের হলে হত্যা করা হবে বলে হুমকি দিয়েছেন। আমি এ বিষয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ দিয়েছি।
তবে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আব্দুল ওহাব। তিনি বলেন,আমরা ওনার (ফিরোজ আহমেদ খান) কাছে ভোট চাইতে যাই। উনি তখন বললেন,তাদের কাছে নাকি আমার ভোট চাওয়া ঠিক না! উনি যদি বলে তাহলে নাকি ওই এলাকার লোক আমার পক্ষে ভোট করবে না। এসব নিয়ে উনার লোকজনের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়েছে। কিন্তু কোনো হুমকি দেওয়া হয়নি। উনিই হুমকি দিয়ে বলেছেন-আমাকে ওখানে ঢুকতে দেবেন না, তখন আমিও বলেছি তাহলে উনাকেও কোথাও যেতে দেব না।
সুজানগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জালাল উদ্দীন বলেন,এখনো আমি লিখিত অভিযোগ পাইনি। তবে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
এদিকে চেয়ারম্যানকে হুমকি দেওয়ার প্রতিবাদে গত শুক্রবার বিকেলে হাটখালির কামালপুর বাজারে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। এতে উপস্থিত ছিলেন হাটখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ খান,হাটখালী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আজহার আলী শেখ,সুজানগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক সরদার আব্দুর রউফ,সুজানগর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ফেরদৌস আলম ফিরোজ,উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক উপদপ্তর সম্পাদক রেজা মন্ডল,সুজানগর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক আমিরুল ইসলাম, হাটখালী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি নুরুল ইসলাম রিপন, হাটখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল বাতেন পাপ্পু,হাটখালী ইউনিয়ন কৃষকলীগের সভাপতি শুরমান মেম্বার, যুবলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।