ঢাকা ১১:৫১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সুজানগরে নিখোঁজ শিশুর মরদেহ উদ্ধার

পাবনা প্রতিনিধি:
  • আপডেট সময় : ০৫:১৩:১৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০২৩ ৫৬ বার পঠিত

পাবনার সুজানগরে নিখোঁজের ২০ ঘণ্টা পর নাফিয়া আক্তার নামে ৬ বছরের শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। স্বজনদের অভিযোগ,তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়,সুজানগর উপজেলার আমিনপুর বিশ্বাসপাড়া গ্রামের নাজমুল বিশ্বাসের মেয়ে নাফিয়া চার দিন আগে সারিরভিটা পশ্চিমপাড়া গ্রামে তার নানার বাড়িতে বেড়াতে যায়। রোববার (১৭ ডিসেম্বর) দুপুর ১২টা থেকে নাফিয়ার খোঁজ পাচ্ছিলেন না স্বজনরা। সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) সকালে নানার বাড়ির বাথরুম সংলগ্ন টিউবওয়েলের পাশে নাফিয়ার মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয় তারা। পরে আমিনপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নাফিয়ার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।
নিহতের বাবা নাজমুল বিশ্বাসের অভিযোগ,তাকে হত্যার পর ওই স্থানে ফেলে রেখে গেছে দুর্বৃত্তরা। কিন্তু কেন,কী কারণে হত্যা করেছে তা বলতে পারছেন না তিনি।
আমিনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুনর রশিদ জানান, নিহতের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তদন্ত চলছে। ময়না তদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে। এ ঘটনায় নিহতের বাবা নাজমুল বিশ্বাস বাদী হয়ে হত্যা মামলা করেছেন।

ট্যাগস :

সুজানগরে নিখোঁজ শিশুর মরদেহ উদ্ধার

আপডেট সময় : ০৫:১৩:১৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০২৩

পাবনার সুজানগরে নিখোঁজের ২০ ঘণ্টা পর নাফিয়া আক্তার নামে ৬ বছরের শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। স্বজনদের অভিযোগ,তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়,সুজানগর উপজেলার আমিনপুর বিশ্বাসপাড়া গ্রামের নাজমুল বিশ্বাসের মেয়ে নাফিয়া চার দিন আগে সারিরভিটা পশ্চিমপাড়া গ্রামে তার নানার বাড়িতে বেড়াতে যায়। রোববার (১৭ ডিসেম্বর) দুপুর ১২টা থেকে নাফিয়ার খোঁজ পাচ্ছিলেন না স্বজনরা। সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) সকালে নানার বাড়ির বাথরুম সংলগ্ন টিউবওয়েলের পাশে নাফিয়ার মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয় তারা। পরে আমিনপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নাফিয়ার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।
নিহতের বাবা নাজমুল বিশ্বাসের অভিযোগ,তাকে হত্যার পর ওই স্থানে ফেলে রেখে গেছে দুর্বৃত্তরা। কিন্তু কেন,কী কারণে হত্যা করেছে তা বলতে পারছেন না তিনি।
আমিনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুনর রশিদ জানান, নিহতের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তদন্ত চলছে। ময়না তদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে। এ ঘটনায় নিহতের বাবা নাজমুল বিশ্বাস বাদী হয়ে হত্যা মামলা করেছেন।